ফেসবুকের হালচাল ও আমাদের প্রজন্ম


প্রকাশের সময় :৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ৪:১২ : পূর্বাহ্ণ

ইদানিং ফেসবুকে প্রায়ই ফ্রেন্ডস রিকুয়েষ্ট আসে যাদের বয়স ফ্রেন্ডস হওয়ার যোগ্যতা রাখেনা।

 

 

দলের বেশীরভাগ কর্মী, নেতার গুণকীর্তন গায় ফেইসবুকে! সামনে দাড়িয়ে কথা বলার সময় যে ছেলেটা ভয়ে মুথে (প্রস্রাব করে) দিত সেও ফেসবুকে হুংকার ছড়ায়!

 

 

 

নেতাদের অনেকের উন্নয়ন ফেসবুকে! এক কেজী আটা দান করলো, আধা কেজী চিনি দিল এসবকে বস্তায় বস্তায় দিয়েছে বলে সস্তায় প্রকাশ করার প্লাটফরম যেন ফেসবুক।

 

 

 

খুব সহজে তেলাতেলির কাজটিও ফেসবুকে দেখা যায়! এখানে তেলাতেলি দেখলে সরিষা, সয়াবিনের মতো তেল নিজেরাও লজ্জা পায়।

 

 

 

এক শ্রেনীর লোক এটাতে এতোটাই এডিক্টেট হয়ে পড়েছে যেন, ফেসবুক ছাড়া সে অসহায়। এখানে সহজে গরুজনের কাছে গুরুজনের আত্মসম্মান হনন হয়।

 

 

 

এখানে অনেকেই আবার এক্সপার্ট শিক্ষক, নিজেকে বড় বড় প্রফেসর ভাবেন অতচ ছাত্র হওয়ার যোগ্যতাও রাখেনা তারা! যাদের বলা চলে কূপমণ্ডূক!

 

 

 

মিছিলে মানুষ ৫শ কিংবা ১হাজার হতে হবে তা কোন ফ্যাক্টর না! সামনে একটা ব্যানার,জড়োসড়ো হয়ে কয়েকজন মানুষের সমাবেশ নিয়ে ছবি হলেই হলো- বিশাল মিছিল!

 

 

 

এখানে ছেলে-মেয়ের সব অপকর্মকান্ড মা-বাবার কাছে স্পষ্ট! ডেটিং, চ্যাটিং, হ য ব র ল সবকিছুই আয়নার মতো স্বচ্চ পর্দায় দেখা যায়। খুব কম সময়ে ভ্রাতৃত্ব, কতৃত্ব, বন্ধুত্ব, মাতৃত্ব কিংবা পিতৃত্ব ধ্বংসের পথে! যার একমাত্র প্লাটফরম ফেসবুক!

 

 

 

নেতার সাথে কোন রকম একটা সেলফি নিতে পারলে, সে ছবিখানা পোষ্টাইয়ে নেতার ভাব নেয়! মানে চৌকিদারের চেয়ারম্যানগিরি।

 

 

 

 

আজকাল যুব সমাজের ধ্বংসের পেছনে ইন্টারনেটের যুগে ফেসবুক অনেকাংশে দায়ী। বাংলাদেশ সরকারের উচিত- অন্তত ১৮ বছর পূর্ণ না হলে, জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে ফেসবুক নয়। ফেসবুকের একাউন্ট সহজপ্রাপ্যতা, প্লে স্টোরে লুডু’র মতো নানা খেলার এ্যাপস গুলোর সহজে প্রাপ্তী আমাদের ইয়াং থেকে শুরু করে অনেকের সৃজনশীলতা নষ্ট করে দিচ্ছে।

 

 

 

 

ফেসবুক যখন হাই স্কুলের ছাত্রের একাউন্ট, এন্ড্রয়েট সেট যখন ছাত্রের হাতে তখন থেকে সে ধ্বংসের পথে। বেশীরভাগ মাতা-পিতা আবেগের ভালোবাসায় ছেলে-মেয়ের ভবিষ্যৎ ধ্বংস করে দেয়। অনৈতিক আবদার পূরুণ করে পরে আপসোস করে ছেলেটা কিংবা মেয়েটা কেন এমন হলো! তাই আপনার ছোট বাচ্চাদের নাগালের বাহিরে রাখুন আপনার মোবাইল ফোনটি। মনে রাখবেন-“অকালে না নোয়ালে বাঁশ, পরে বাঁশ করে ঠাস ঠাস।”

 

লেখকঃ শিব্বির আহমেদ রানা

             সাংবাদিক ও  সমাজকর্মী 

ট্যাগ :

আরো সংবাদ



আর্কাইভ
সেপ্টেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট   অক্টোবর »
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০